অনুষ্ঠানে নজর কাড়তে গাউন

বন্ধুর জন্মদিন কিংবা অন্য যেকোনো অনুষ্ঠানে নিজেকে ভিন্ন লুকে সাজাতে সবারই ভালো লাগে। তাই কেউ শাড়ি, আবার কেউবা জমকালো সালোয়ার-কামিজ পরতে পছন্দ করেন। হাল ফ্যাশনে অনুষ্ঠানের পোশাকে যুক্ত হয়েছে গাউন বা লং ড্রেস। নান্দনিক ডিজাইনের সঙ্গে ফ্যাশনেবল বিধায় তরুণীদের কাছে এই পোশাক এখন বেশ জনপ্রিয়। আর গাউনে বা লং ড্রেসে অনায়াসে অনুষ্ঠানে সবার নজরও কাড়তে পারা যায়।

একসময়ের ঢিলেঢালা ও আরামদায়ক লং পোশাকই আধুনিক জীবনে নতুন ও বিচিত্র রূপে হাজির হয়েছে। যা কিনা সাধারণ উপস্থাপনায় আভিজাত্যপূর্ণ ও আরামদায়ক বটে। গাউন মূলত পাশ্চাত্যের পোশাক ও সেখানেই পোশাকটির জন্ম। গাউন কাটিংয়ের পোশাক মূলত মধ্যযুগ থেকে সপ্তদশ শতক পর্যন্ত নারী-পুরুষ উভয়েই পরতেন। এমনকি আধুনিক যুগেও তরুণীদের পাশাপাশি বেশ কিছু পেশাজীবী নারীরাও গাউন পরে থাকেন। ফ্যাশনের চক্রাকারে, পরবর্তীকালে গাউন পোশাকটি মেয়েদের বডিস ও স্কার্ট-সম্বলিত ফ্লোর লেন্থের পোশাককেই বোঝানোর জন্য ব্যবহৃত হতে শুরু করে। আর ব্যবহার ও ডিজাইনভেদে গাউনের রয়েছে বিচিত্র পরিচয়। এগুলোর একেকটির আঙ্গিক ও পরার ধরন ভিন্ন। লাক্সারিয়াস এই পোশাক মেয়েরা সাধারণত ফরমাল অনুষ্ঠানে পরে।

এর দৈর্ঘ্য টি-লেন্থ থেকে শুরু করে ফ্লোর লেন্থ—যেকোনো রকমের হতে পারে। এটি বিভিন্ন ধরনের লাক্সারিয়াস ফেব্রিক, যেমন—ভেলভেট, অরগ্যাঞ্জা, সিল্ক, শিফন, স্যাটিন ইত্যাদি দিয়ে তৈরি। এই গাউনের বৈচিত্র্যে ফ্যাশন জগতের নামিদামি ডিজাইনার ও ব্র্যান্ডের অবদান সবচেয়ে বেশি। বল কাটিং গাউনও মেয়েদের জন্য পরিপূর্ণ ফরমাল পোশাক। পাশ্চাত্যের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে মেয়েরা এটি পরে থাকে। মূলত ফুল-স্কার্টেড এই গাউন বেশ উঁচু দরের ফেব্রিক দিয়ে অত্যন্ত যত্নের সঙ্গে তৈরি হয়ে থাকে। এর কাঁধের অংশ থেকে নেকলাইন বরাবর সাধারণত খোলা থাকে। এ ধরনের গাউনের সঙ্গে কোটের বদলে পরা হয় স্টোল, কেপ বা ক্ল্যোক কিংবা কতুর ভিনটেজ জুয়েলারি এবং অপেরা শোর পোশাকে ব্যবহৃত গ্লাভসের দৈর্ঘ্যবিশিষ্ট গ্লাভস পরা হয়ে থাকে।

পাশ্চাত্য সংস্কৃতির মতো আমাদের এখানেও বর্তমানে যেকোনো অনুষ্ঠানের জন্য ব্যবহৃত জুতা ও ইভনিং ক্লাচ এই গাউনের জন্য জুতসই অ্যাক্সেসরিজ। এসব গাউন বা লং ড্রেস আপনি পাবেন এক্সট্যাসি, ক্যাটস আই, আইকনিক ফ্যাশন গ্যারেজসহ রাজধানীর স্বনামধন্য অভিজাত ফ্যাশন হাউসের আউটলেটগুলোয়। তবে মনে রাখতে হবে, অনুষ্ঠানের জন্য আপনি যখন পোশাক হিসেবে গাউন বা লং ড্রেস বেছে নিবেন, তখন অবশ্যই আপনার মেকআপটা যেন পোশাকের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়। এক্ষেত্রে চুলের স্টাইলটা ভিন্ন হলেই ভালো হয়। সবশেষে প্রিয় সুগন্ধির ছোঁয়া নিতে ভুলবেন না যেন!
মডেল আঁখি
পোশাক ও ছবি আইকনিক ফ্যাশন গ্যারেজ

ডিজাইন তাসলিমা মলি

স্টাইলিং গৌতম সাহা